logo
বাড়ি Health A-Z পেট ফাঁপা : এর কারণ ও ঘরোয়া প্রতিকার

পেট ফাঁপা : এর কারণ ও ঘরোয়া প্রতিকার

Verified By Apollo General Physician April 11, 2023 22887 0
পেট ফাঁপা : এর কারণ ও ঘরোয়া প্রতিকার
Abdominal Bloating

কখনও কখনও আপনি নিশ্চয়ই লক্ষ্য করে থাকবেন যে আপনার পেটটা যেন ফোলা লাগছে বা অদ্ভুত লাগছে, এমনকি তীক্ষ্ণ পেটে ব্যথাও আপনি অনুভব করতে পারেন; একে পেট ফাঁপা বলা হয়। পেট ফাঁপা আজকাল একটি অতি সাধারণ সমস্যা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটি কোন গুরুতর সমস্যা ঘটায় না, তবে এটি উদ্বেগজনক হতে পারে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পেট ফাঁপার কারণ হল বদহজম বা পেটে অত্যধিক গ্যাস তৈরি হওয়া। এই ধরনের ক্ষেত্রে, ঘরোয়া প্রতিকারের মাধ্যমে এই ফোলাভাব কমানো যেতে পারে।

পেট ফাঁপা হওয়ার সাধারণ কারণ কী কী?

পেট ফাঁপা একটি অতি সাধারণ সমস্যা। প্রতিটি মানুষই তাদের জীবনে অন্তত একবার হলেও এই অভিজ্ঞতা পেয়েছে। তবে কিছু কিছু ব্যতিক্রমী ক্ষেত্র হয় যেখন মানুষ পর্যায়ক্রমে এই ফোলা বা ফাঁপা ভাব অনুভব করে। এই পর্যায়ক্রমিক পেট ফাঁপার ঘটনা যদি প্রচুর অস্বস্তির কারণ না হয় তবে এতে চিন্তার কিছু নেই।

তবে যদি এর ধরণ পরিবর্তন হয় বা ব্যথার উদ্রেক ঘটে, এটি উদ্বেগের ক্ষেত্রে পরিণত হয়।

ফোলাভাব নিম্নলিখিত কারণে হতে পারে:

গ্যাস উৎপন্ন হওয়া 

যদি আপনার পেটে গ্যাসের পরিমাণ বেশি থাকে, তাহলে এর ফলে পেট ফোলা হতে পারে। আপনার শরীর আটকে থাকা বাতাসকে মুক্ত করতে না পারলে এমন অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। সাধারণত, আমাদের শরীর ঢেঁকুরের মাধ্যমে পেটে জমে থাকা বায়ু নির্গত করে।

বদহজম

বেশীরভাগ লোকই পর্যায়ক্রমে ঘটা বদহজমের সাথে সম্পর্কিত ফোলা ভাব অনুভব করে। এই পর্যায়ক্রমিক পেট ফাঁপা হয় অতিরিক্ত খাওয়া, অতিরিক্ত মদ্যপান, পেট জ্বালা করে এমন ওষুধ খাওয়া এবং পেটের সংক্রমণের কারণে হতে পারে। কিন্তু, যদি বদহজমের কারণে ফোলাভাব যদি খুব ঘন ঘন হয়, তবে আপনাকে অবশ্যই একজন ডাক্তারের কাছে যেতে হবে।

পেটে সংক্রমণ

পেটে সংক্রমণের কারণে পেট ফেঁপে যাওয়া এবং গ্যাস তৈরি হতে পারে। এতে আপনি ডায়রিয়া, বমি হওয়া, পেটে ব্যথা এবং বমি বমি ভাবের মতো লক্ষণগুলি অনুভব করতে পারেন। তবে মলের সাথে রক্ত, জ্বর এবং শরীরে জলশূন্যতার মতো লক্ষণগুলি দেখা দিলে সংক্রমণ উদ্বেগের কারণ হতে পারে। এই ধরনের ক্ষেত্রে আপনাকে অবিলম্বে চিকিৎসা সহায়তা চাইতে হবে।

ক্ষুদ্রান্ত্রের ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি (এসআইবিও)

আমাদের অন্ত্র অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়ার আবাসস্থল। এই ব্যাকটেরিয়াগুলি আমাদের খাবারকে ভালোভাবে হজম করতে সাহায্য করে। তবে ব্যাকটেরিয়ার এই ভারসাম্য নষ্ট হয়ে গেলে অনেক সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যাগুলির মধ্যে একটি হল ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি। এসআইবিও খাদ্য থেকে পুষ্টি পদার্থ শোষণে সমস্যা করতে পারে এবং ফোলা সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এসআইবিও এমনকি ওজন বৃদ্ধি এবং অস্টিওপোরোসিসও ঘটাতে পারে।

পেটে তরল জমা

লবণাক্ত খাবার খাওয়া এবং হরমোনের পরিবর্তন আপনার শরীরে তরল জমা করতে পারে। এমনকি কিছু মহিলা তাদের ঋতুস্রাব এবং গর্ভাবস্থার ঠিক আগে এই ফোলাভাব অনুভব করেন। কিছু দীর্ঘস্থায়ী তরল জমার সমস্যা আবার গুরুতর আকার নিতে পারে। এর মধ্যে তৈরি কিছু সমস্যা হল কিডনি ফেইলিওর এবং ডায়াবেটিস। আপনার পেট ফোলাভাব না কমলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

নির্দিষ্ট খাদ্যের প্রতি অসহিষ্ণুতা

দুগ্ধজাত পদার্থের প্রতি অসহিষ্ণু একজন ব্যক্তি যদি দুগ্ধজাত পদার্থ গ্রহণ করেন তবে তাদের পেট ফুলে যায়। সময়ের সাথে সাথে যদিও এই ফোলাভাব কমে যায়, তাও এটি নিয়ে উক্ত ব্যক্তিকে একজন ডাক্তারের সাথে আলোচনা করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

দীর্ঘস্থায়ী ব্যাধি

ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম (আইবিএস) এবং ক্রোনস ডিজিজের মতো রোগগুলি ঘন ঘন পেট ফাঁপার কারণ হতে পারে। এই রোগগুলির কারণে ডায়রিয়া, গ্যাস, অনিচ্ছাকৃত ওজন হ্রাস এবং বমি হয়ে থাকে।

স্ত্রীরোগ সংক্রান্ত ব্যাধি

কিছু সমস্যা স্ত্রীরোগ সংক্রান্ত সমস্যাও পেট ফাঁপার মতো লক্ষণ হিসাবে প্রকাশ পায়। এন্ডোমেট্রিওসিস হল এমন একটি উল্লেখযোগ্য সমস্যা, যেখানে গর্ভাশয় পেটের আস্তরণের সাথে সংযুক্ত থাকে। কখনও কখনও, শ্রোণিদেশের ব্যথাকেও পেট ফাঁপা  হিসাবে ধরা হয়।

কোষ্ঠকাঠিন্য

এটি একটি সাধারণ সমস্যা। আমাদের গ্রহণ করা খাদ্যের কারণে, আমরা কোষ্ঠকাঠিন্য প্রবণ হতে পারি। এই কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণে প্রায়ই পেট ফাঁপা ভাব হয়। জলশূন্যতা, আঁশযুক্ত খাবারের অভাব, গর্ভাবস্থা ইত্যাদি সহ কোষ্ঠকাঠিন্যের বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে।

অন্যান্য কারণ

 কিছু গুরুতর সমস্যার কারণে প্রায়শই পেট ফাঁপা হতে পারে। পিত্তথলির পাথর, পাকস্থলী, ডিম্বাশয়, অন্ত্র ইত্যাদির ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তিরা ঘন ঘন ফাঁপাভাব এবং অস্বস্তি অনুভব করতে পারে। অ্যাসাইটস এবং আলসারও এই পেট ফাঁপার প্রধান কারণ হতে পারে, যার জন্য চিকিৎসা সহায়তা প্রয়োজন।

পেট ফুলে যাওয়ার জন্য আপনার কখন চিকিৎসা সহায়তা নেওয়া দরকার?

এমনকি ঘরোয়া প্রতিকার চেষ্টা করার পরেও, কিছু ফোলা সমস্যার সঠিক চিকিৎসা সহায়তা ছাড়া সমাধান নাও হতে পারে। আসুন আমরা পেট ফাঁপার কিছু গুরুতর কারণগুলি দেখি:

  •  ক্যান্সার, বৃক্কের বিকল হয়ে ফেলে, কনজেস্টিভ হৃদপিন্ডের বিকল হয়ে যাওয়া  ইত্যাদি কারণে পেটে প্যাথলজিক ফ্লুইড জমা হয়।
  • গ্লুটেনযুক্ত খাবারের প্রতি অসহিষ্ণুতা
  •  অগ্ন্যাশয়ের অপ্রতুলতার কারণে হজমশক্তি ব্যাহত হয়।
  • জিআই নালীতে ছিদ্র, যা পেটের গহ্বরের দিকে গ্যাস এবং ব্যাকটেরিয়া বাহিত করে নিয়ে যায়।

পেট ফেঁপে যাওয়া ঘরোয়া প্রতিকার — প্রাকৃতিকভাবে এর চিকিৎসা করুন

পেট ফাঁপার কিছু ঘরোয়া প্রতিকার হল:

  • অতিরিক্ত বেশি খাবেন না

আপনাকে সর্বদা অতিরিক্ত খাওয়া এড়াতে হবে এবং আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী খেতে হবে। সুস্বাদু খাবার পরিবেশন করা হলে আমরা সাধারণত অতিরিক্ত খেয়ে ফেলি। আমাদের পেটের ক্ষুধা মেটানোর মতো যথেষ্ট খাওয়া উচিত, আমাদের জিহ্বার স্বাদ মেটানোর জন্য নয়।

অল্প পরিমাণে খাবার খাওয়ার পরেও লোকেরা পেট ফেঁপে যাওয়া অনুভব করতে পারে। এক্ষেত্রে পেট ফাঁপা প্রতিরোধ করতে আপনার খাদ্য সঠিকভাবে চিবিয়ে খান।

  • আপনার খাবারের অ্যালার্জি সম্পর্কে জানুন

খাদ্য এলার্জি সাধারণ ঘটনা। আপনি কোন কোন খাবারের অ্যালার্জিতে ভুগছেন সে সম্পর্কে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে। আপনাকে অবশ্যই এই খাবারগুলি যে কোনও মূল্যে খাওয়া থেকে দূরে থাকতে হবে। আপনি যে খাবারে অ্যালার্জিযুক্ত সেই খাবারের বিকল্প খুঁজে নিতে পারেন।

  • পেটে বাতাস প্রবেশ এড়িয়ে চলুন

পানীয় দ্রব্য পান করা এড়িয়ে চলুন। আপনার দেহে বাতাস প্রবেশ করলে সেটাও পেট ফাঁপার সৃষ্টি করতে পারে। কার্বনেটেড এবং ফিজি পানীয় এড়িয়ে চলুন, চুইং গাম, পাইপ দিয়ে পান করা পানীয়, কথা বলতে বলতে খাওয়া এগুলো এড়িয়ে চলুন কারণ এতে পেট ফাঁপা হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

চিনিজাত অ্যালকোহল সম্পর্কে সতর্ক থাকুন, যেমন এক্স্যলিতল, সরবিতল, এবং মান্নিতল। চিনির এই নিরাপদ বিকল্পগুলি আপনার পরিপাকতন্ত্রকে নষ্ট করে দিতে পারে। বৃহদন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া এগুলো খেয়ে গ্যাস উৎপন্ন করে।

  • পাচক এনজাইম সম্পূরক গ্রহণ করুন

কিছু প্রতিরোধী উৎসেচক পেট ফাঁপা উপশম করতে সাহায্য করতে পারে। এই উৎসেচকগুলি আপনার শরীর হজম করতে অক্ষম সেইসব সমস্যাকারী কার্বোহাইড্রেটগুলি ভেঙে দিতে সাহায্য করে।

  • কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

স্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে আপনি কোষ্ঠকাঠিন্য এড়াতে পারেন। বেশি করে রাফেজ জাতীয় খাবার ও জল খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। রাফেজ ভাল হজমে সাহায্য করে, এবং জলে দ্রবণীয় আঁশযুক্ত খাবার কোষ্ঠকাঠিন্য কমিয়ে দেয়।

  •  প্রোবায়োটিক গ্রহণ করুন

প্রোবায়োটিক আপনার খাদ্যের একটি অপরিহার্য অংশ। প্রোবায়োটিক আপনাকে ভাল এবং খারাপ ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে একটি স্বাস্থ্যকর ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। দই প্রোবায়োটিকের একটি সমৃদ্ধ উৎস। আপনি প্রতিদিনই দই খেতে পারেন। এমনকি আপনি দোকানে উপলদ্ধ প্রোবায়োটিকগুলিও গ্রহণ করতে পারেন।

  • পেপারমিন্ট তেল আপনাকে ফাঁপা ভাব কমাতে সাহায্য করবে

গবেষণায় দেখা গেছে যে পেপারমিন্ট তেল দিয়ে ইরিটেটেবল বাওয়েল সিনড্রোম (আইবিএস) কমানো যায়। এটি দ্রুত উপসর্গ থেকে মুক্তি দেয়।

  • উপসংহার

পেট ফাঁপার লক্ষণগুলি কখনই উপেক্ষা করবেন না, কারণ সেগুলি আপনার ধারণার চেয়ে আরও গুরুতর হতে পারে। সর্বদা আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন। যদি ঘরোয়া প্রতিকারগুলি আপনার লক্ষণগুলি কমাতে এবং আপনার অবস্থার উন্নতি করতে ব্যর্থ হয় তবে এবং সঠিক চিকিৎসা সহায়তা নিন। পেট ফাঁপার সমস্যা আপনার ডাক্তারের সাহায্য এবং উপদেশের মাধ্যমে স্থায়ীভাবে সমাধান করা যেতে পারে।

Apollo General Physician
Verified By Apollo General Physician

Our expert general medicine specialists verify the clinical accuracy of the content to deliver the most trusted source of information makine management of health an empowering experience

দ্রুত অ্যাপয়েন্টমেন্ট

SEND OTP

প্রোহেলথ

Book ProHealth Book Appointment
Request A Call Back X